কৌশলগত দিক নির্দেশনা

জাতীয় আইনগত সহায়তা প্রদান সংস্থার কৌশলগত নির্দেশনার মূল উপাদানসমূহ এবং পরবর্তী পাঁচ বছরে যে সব কার্যবিষয়ে আলোকপাত করা প্রয়োজন তা এই অংশে আলোচনা করা হলো।

জাতীয় আইনগত সহায়তা প্রদান সংস্থার কৌশলগত নির্দেশনাসমূহ কৌশলগত অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে নিম্নলিখিত চারটি ভাগে বিভক্তঃ

প্রাতিষ্ঠানিকঃ জাতীয় আইনগত সহায়তা প্রদান সংস্থার অভ্যন্তরীণ প্রাতিষ্ঠনিক চাহিদা পূরণে অগ্রাধিকার দেয়া।

কার্যক্রমভিত্তিকঃ জাতীয় আইনগত সহায়তা প্রদান সংস্থার নির্দেশনা এবং এতদ্সংশ্লিষ্ট নীতিমালা অনুসারে একটি দক্ষ, কার্যকর ও উচ্চমানসম্পন্ন আইনগত সহায়তা কার্যক্রম পরিচালনায় প্রয়োজনীয় অগ্রাধিকার দেয়া।

সহযোগিতামূলকঃ আইনগত সহায়তা সেবা প্রদান কার্যক্রমকে আরও কার্যকর করার লক্ষ্যে সরকারি, বেসরকারি ও নাগরিক সমাজের বিভিন্ন অংশীদারদের সাথে কাজ করার জন্য জাতীয় আইনগত সহায়তা প্রদান সংস্থার চাহিদা পূরণে অগ্রাধিকার দেয়া।

অর্থসংক্রান্তঃ জাতীয় আইনগত সহায়তা প্রদান সংস্থার সুফলভোগীদের সর্বোচ্চ সহায়তা প্রদান নিশ্চিত করার জন্য দাতাদের সহযোগিতাসহ পর্যাপ্ত সম্পদ অর্জনে সংস্থার  চাহিদাকে অগ্রাধিকার দেয়া।

তথ্য: 
তথ্য আপা প্রকল্প