কখন চিকিৎসকের শরণাপন্ন হতে হবে

  • এক বছর বয়স পার হলেও শিশুর মুখে বুলি ফুটছে না।
  • বয়স দু’বছর অতিক্রম করলেও দুটি শব্দ পাশাপাশি বসিয়ে বাক্য উচ্চারণ করতে পারছে না; যেমন- মা খাব, বই দাও।
  • এক বছর বয়সের মধ্যে হাত নেড়ে টাটা বলতে বা কোনো কিছু আঙ্গুল দিয়ে নির্দেশ করতে শিখছে না।
  • নাম ধরে ডাকলে সাড়া দেয় না।
  • ১৬ মাস বয়স হলেও একটি মাত্র শব্দও উচ্চারণ করতে পারছে না।
  • বয়স বাড়লেও মুখে ভাষা নেই।
  • খেলনা দিয়ে কিভাবে খেলতে হয় তা জানে না বা বোঝে না।
  • খুব যত্নের সাথে খেলনা বা নিজের জিনিস গুছিয়ে রাখে।
  • হাসে না, কাঁদে না, প্রয়োজনীয় জিনিস মুখ ফুটে চায় না, হাত দিয়ে দেখিয়ে দেয়।
  • কোনো কিছু বুঝতে বা শিখতে শিশুর অসুবিধা।
  • সব কিছু থেকে নিজেকে সরিয়ে নেয়া, নিঃস্ব ও দুঃখী ভাব।
  • চোখে চোখ রেখে তাকায় না।
  • একটি নির্দিষ্ট খেলনা দিয়েই বছরের পর বছর খেলতে থাকে।
  • মসৃণ বস্তু বারবার ঘষা।
  • অখাদ্য বস্তু খায়, যেমন- মাটি, কাগজ, চক, পেস্ট।
  • জগৎ সম্পর্কে উদাসীন, কাউকে আদর করে না, কারো আদর পেতে পছন্দও করে না।
  • দুরন্তপনা, ক্রমাগত লাফানো, আঙ্গুলে ভর দিয়ে হাঁটা।
  • ব্যথা পেলেও নির্লিপ্ত থাকে বা অধিক চেঁচামেচি করে।
  • অকারণে চিৎকার করে, স্বাভাবিক কথাবার্তা বলতে পারে না, কোনো একটি দুর্বোধ্য শব্দ বারবার উচ্চারণ করে।
  • সহজে মিশতে পারে না; কোনো ব্যক্তি নয়, বস্তুর সাথে সম্পর্ক গড়তে পছন্দ করে।
  • সাধারণ শিক্ষাপদ্ধতিতে লেখাপড়া শিখতে পারে না; কিন্তু অনেক সময় কোনো বিশেষ বিষয়ে পারদর্শিতা প্রদর্শন করে, যেমন- অঙ্কন, গান, নৃত্য।
  • মনে হয় শিশু কানে ভালো শুনতে পায় না।
  • একই ভঙ্গিতে শরীর দোলানো।
  • বিপদের ভয় নেই আগুনে হাত দেয়, ধারালো বস্তু হাতে নেয়।
  • ঘুমের অসুবিধা।
চিকিৎসা
Centers for diseases control and prevention অটিজমের চিকিৎসার কিছু টাইপের কথা উল্লেখ করেছে। সেগুলো হলঃ
  • Behavior and Communication Approaches
  • Dietary Approaches
  • Medication
  • Complementary and Alternative Medicine
Behavior and Communication Approaches: American Academy of Pediatrics and the National Research Council এর একটি রিপোর্টে বলা হয়েছে behavior and communication approaches বা যোগাযোগ বা আচরনগত পন্থা যা কিনা অটিজমে আক্রান্ত শিশুদের পরিবারে নিজের অংশগ্রহন সহ নির্দেশনা, আচরনের গঠন, ও সাংগঠনিক হতে সাহায্য করে।
 
Applied behavioral analysis (ABA) (এপলাইড বিহেভিওরাল এনালাইসিস): অটিস্টিকদের জন্য একটি উল্লেখযোগ্য চিকিৎসা পদ্ধতি হল Applied behavioral analysis (ABA) (এপলাইড বিহেভিওরাল এনালাইসিস)। এই ABA বিশ্বব্যাপী প্রচলিত জনপ্রিয়।অটিস্টিক শিশুদের ভালকাজে উৎসাহিত এবং নেতিবাচক কাজে নিরুৎসাহি করা ও তাদের স্বতন্ত্র দক্ষতা বিকাশে  বিভিন্ন স্কুল, পেশজিবি স্বাস্থ্যকেন্দ্র, ও বিভিন্ন ক্লিনিক এ ABA এপ্রোচ গ্রহণ করা হচ্ছে।
 
ABA এর কিছু উধাহরন নিম্নরূপ
  • Discrete Trial Training (DTT): DTT এক ধরনের শিক্ষণ শৈলী যা প্রত্যাশিত আচরনের জন্য  শিক্ষার প্রতিটি ধাপে একটি সিরিজ ব্যাবহার করে।শিশুকে এক সাথে অনেক কাজ করতে  না দিয়ে তার কাজগুলো ছোটো ছোটো ভাগে ভাগ করে দেয়া হয়, এবং প্রতিটি কাজ সমাপ্ত হলে সঠিক উত্তর বা আচরনের জন্য তাকে পুরস্কৃত করা হয়।ভুল আচরন বা উত্তরকে এড়িয়ে চলা হয়।
  • Early Intensive Behavioral Intervention (EIBI): এতা ABA  এর আরেকটি টাইপ যা অনেক ছোট অটিস্টিক শিশুদের জন্য। সাধারণত ৫ বছরের ছোট  শিশুর ক্ষেত্রে এই Early Intensive Behavioral Intervention (EIBI) প্রয়োগ করা হয়।
  • Pivotal Response Training (PRT): PRT এর মূল লক্ষ্য হল শিশুদের শিক্ষাকে গতিশীল করা, নিজের আচরন সম্পর্কে সচেতন/ অবগত করা,এবং অন্যদের সা্থে যোগাযোগ স্থাপনের দক্ষতা বৃদ্ধি করা। এসকল আচরনের ভাল পরিবর্তন গুলো অন্য আচরনে ইতিবাচক প্রভাব ফেলে।
  • Verbal Behavior Intervention (VBI): ABA এর এই টাইপ টি মূলত শিশুর কথা বলার দক্ষতার দিকে আলোকপাত করে। অটিস্টিক শিশুদের চিকিৎসার এই  ক্ষেত্রে কিছু এপ্রোচ ব্যবহার করা হয়।
  • Developmental, Individual Differences, Relationship-Based Approach (DIR; also called "Floortime")
Floortime বা DIR মূলত শিশুর আবেগিয় ও অন্যান্যদের সাথে সম্পর্কের উন্নয়নের দিকটির উপর আলোকপাত করে থাকে। যেমনঃ অনুভূতি, কাছের মানুষের সাথে সম্পর্ক ইত্যাদি। এছাড়াও এই Floortime বা DIR শিশুরা বিভিন্ন সংবেদনশীল কাজ যেমন দর্শন, শ্রবন ও গন্ধ সম্পর্কে কাজ করে।
 
Treatment and Education of Autistic and related Communication-handicapped Children (TEACCH): TEAACH দৃশ্যমান বস্তু দিয়ে শিক্ষার ক্ষেত্রে ব্যাবহার করা হয়। যেমনঃ ছবি, কার্ড দিয়ে শিশুদের ছোট ছোট বাক্যে কথা বলা শেখানো হয়।
  • Occupational Therapy: এটি শিশুদের যতটা সম্ভব  স্বতন্ত্র মানুষ হিসেবে গড় ওঠার জন্য যাবতিয় বিষয়গুলো সম্পর্কে দক্ষ করে। যেমনঃ নিজে নিজে জামা পড়া, খাওয়া, গোসল ইত্যাদি।
  • Sensory Integration Therapy: এই থেরাপি মানুষের ইন্দ্রিয় নিয়ে কাজ করে যেমনঃ দর্শন, শ্রবন, এবং ঘ্রাণান্দ্রিয়। যে সব অটিস্টিক শিশুদে্র ইন্দ্রিয় সম্পর্কিত সমস্যা (শব্দ সহ্য করতে না পারা, স্পর্শ পছন্দ না করা)  আছে তাদের সাহায্যার্থে এই থেরাপি কাজ করে।
Speech therapy helps to improve the person’s communication skills. Some people are able to learn verbal communication skills. For others, using gestures or picture boards is more realistic.
  • Speech Therapy: স্পিচ থেরাপি একজন মানুষের যোগাযোগের দক্ষতাকে উন্নয়ন করতে সাহায্য করে। কিছু মানুষ আছে যারা কথা বলতে পারে  আর বাকিদের জন্য বিভিন্ন ছবি কিংবা আকার ইঙ্গিত শেখান হয়।
  • The Picture Exchange Communication System (PECS): PECS বিভিন্ন ছবি প্রতিক হিসেবে ব্যাবিহার করে যোগাযোগের দক্ষতার জন্য। এখানে ছবির মাধ্যমে প্রশ্ন ও উত্তর দেয়া হয় এবং সাধারন কথাবার্তাও চলে।
  • Dietary Approaches:  বেশ কয়েকজন থেরাপিস্ট এই Dietary Approaches  এর বিশয়ে কাজ করে যাচ্ছেন। কিন্তু এর অনেক চিকিৎসাই বৈজ্ঞানিক সমর্থন পায়নি । একটি চিকিৎসা একটি শিশুর জন্য উপযোগী হলেও হয়ত অন্যদের জন্য তা নাও হতে পারে। অনেক চিকিৎসক খাদ্য পরিবর্তনের ক্ষেত্রে হস্তখেপ করেন ।যেমন শিশুর খাদ্যব তালিকা থেকে কিছু খাবার বাদ দেয়া ও  কিছু যোগ করা এবং সহায়ক খাদ্য হিসেবে কিছু ভিটামিন বা খনিজ পদার্থ যোগ করা। ডায়েটরী চিকিৎসা মূলত নির্ভর করে অটিস্টিক শিশুর আচরনের প্রভাব ফেলে এমন খাবারের উপর  যা খাবাররের এলারজি অথবা ভিতামিনের অভাবে হয়ে থাকে। কিছু বাবা মা মনে করেন খাবারের পরিবর্তন তাদের শিশুর কার্যকলাপের বিভিন্নতা আনে। শিশুর খাদ্যাভাস পরিবর্তনের ক্ষেত্রে প্রথমেই চিকিৎসকের অথবা পুষ্টিবিদের পরামর্শ নিতে হবে।
  • Medication: মুলত অটিজমের কোন চিকিৎসা ব্যবস্থা এখনও আবিষ্কৃত হয় নি।কিন্তু কিছুকিছু ওষুধ ব্যাবহারের ফলে শিশুর এনার্জির মাত্রা বাড়ানো, কোন কিছুর প্রতি মনযোগী করা, হতাশা রোধ করা অনেখখানি সম্ভব করা যায়। U.S. Food and Drug Administration বলেছে risperidone and aripripazole (antipsychotic drugs)  এই ওষুধ অটিস্টিক শিশুদের যাদের অযাচিত ক্ষোভ, আক্রমণাত্মক ব্যাবহার সহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে ব্যাবহার করা যায়।
  • Complementary and Alternative Treatments: শিশুর অটিজমের লক্ষণএর ভিত্তিতে  বাবা মা এবং স্বাস্থ্যকর্মীর চিকিৎসার বাইরেও শিশুরোগ বিশেষজ্ঞের পরামর্শ অনুযায়ী চিকিৎসা করান হয়। এ ধরনের চিকিৎসাকে Complementary and Alternative Treatments বলে। এখানে থাকে বিশেষ খাদ্যতালিকা, chelation, শরীর সম্পর্কিত বিভিন্ন বিষয় যেমনঃ রক্তচাপ ইত্যাদি।
উপরিউক্ত চিকিৎসাগুলো গুলো নিয়ে নানা আলচনা রয়েছে। অতিসম্প্রতি একটি গবেষণায় দেখা গেছে অটিস্টিক শিশুর এক তৃতীয়াংশ বাবা মা complementary বা  alternative medicine treatments চেষ্টা করেছেন এবং ১০% এর বেশি সম্ভাব্য বিপজ্জনক চিকিৎসা বাছাই করেন। তাই এ ধরনের কোন চিকিৎসা ব্যাবস্থা গ্রহণ করার পূর্বে ভাল করে লক্ষ্য রাখতে হবে এবং চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।
 
এছাড়া সার্বিক ভাবে নিম্নোক্ত পদক্ষেপগুলো  চিকিৎসা হিসেবে গ্রহণ করা যেতে পারে।
  • শিশুকে এক সাথে অনেক কাজ করতে  না দিয়ে তার কাজগুলো ছোটো ছোটো ভাগে ভাগ করে দিন এবং প্রতিটি কাজ সমাপ্ত হলে তাকে পুরস্কৃত করুন।
  • বিশেষ শিক্ষা পদ্ধতিতে শিশুকে প্রশিক্ষণ।
  • ফিজিওথেরাপি, বৃত্তমূলক শিক্ষা, নাচ, গান, অঙ্কন শিক্ষা, কথা বলা শেখানো (স্পিচ থেরাপি)।
  • আচরণ নিয়ন্ত্রণ শিক্ষা
  • প্রথমেই শিশুকে শেখাতে হবে ভাষা, যার দ্বারা সে সকলের সাথে সম্পর্ক সৃষ্টি করতে পারবে। সুস্থ শিশুর ন্যায় অন্যের কথা শুনে কথা শেখা অটিস্টিক শিশুর পক্ষে সম্ভব নয়। সে দেখে শিখতে পারে। তাই শিশুকে বাস্তব জিনিসটি বা তার ছবি দেখিয়ে বস্তুর সাথে পরিচিত করতে হবে। এভাবে এক সময় শিশু কথা বলতেও শিখবে।
  • সামাজিক আচরণ শেখাতে হবে, যেমন কি করে সালাম জানাতে হয়, শ্রেণীকক্ষে শিক্ষকের নির্দেশ কিভাবে অনুসরণ করতে হয়, বাসের জন্য কিভাবে লাইনে দাঁড়াতে হয়। প্রবৃতি বিষয় বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক শিশুকে শেখাবেন।
  • দাঁত ব্রাশ করা, মুখ ধোয়া, বিছানা পরিপাটি করা শিশুকে হাতে ধরে শেখাতে হবে।
  • কি করে ভদ্রভাবে এক জায়গায় বসে থাকতে হয়, মেজাজ নিয়ন্ত্রনে রাকতে হয়, আচরণ নিয়ন্ত্রণ করতে হয় এগুলো ধীরে ধীরে শিশুকে শেখাতে হবে। এক্ষেত্রে চিকিৎসক ঔষধ ব্যবহার করতে পারেন।
  • সামান্য অটিজমে ভুগছে এমন শিশু অন্য শিশুদের সাথে একই বিদ্যালয়ে পড়তে পারে। কিন্তু অটিজম খুব বেশি হলে শিশুর পড়াশোনার জন্য পৃথক স্কুল প্রয়োজন, যেখানে রয়েছে শান্ত পরিবেশ, সবকিছু গোছানো ও পরিপাটি। শিশুর জন্য প্রয়োজন বিশেষ প্রশিক্ষিত শিক্ষক।

 

তথ্য: 
তথ্য আপা প্রকল্প