রোগ ব্যাধি

[ ভিডিও সামগ্রী ] স্বাস্থ্য

তথ্য আপা প্রকল্পের স্বাস্থ্য বিষয়ক তথ্যের জগতে আপনাকে স্বাগতম। স্বাস্থ্যই সকল সুখের মূল। এই চিরন্তন বাণী দ্বারা আমরা স্বাস্থ্যের গুরুত্ব সম্পর্কে অনুধাবন করতে পারি। স্বাস্থ্য বিষয়ক প্রয়োজনীয় সকল তথ্য আপনার হাতের মুঠোয় রাখার জন্য তথ্য ভান্ডারে রয়েছে স্বাস্থ্য সম্পর্কিত একটি সমৃদ্ধ ভান্ডার। প্রাথমিক স্বাস্থ্য ও জরুরী স্বাস্থ্য সেবা সম্পর্কিত তথ্য ছাড়াও এ ভান্ডারে রয়েছে রোগ প্রতিরোধ ও সংক্রামক ব্যাধি সংক্রান্ত 

তথ্য:
  • আপলোডের তারিখ: 07/22/2015 - 11:15
  •  পঠিত: 12,419
  • 0 মতামত

[ পাঠ্য সামগ্রী ] ম্যালেরিয়া

স্ত্রী জাতীয় এনোফিলিস মশার কামড়ে ছড়ায় এমন এক ধরনের সংক্রামক জ্বর হলো ম্যালেরিয়া৷ ম্যালেরিয়া রোগের জীবাণু (প্লাসমোডিয়াম) মশার মাধ্যমে আক্রান্ত ব্যক্তি থেকে অন্যের কাছে ছড়াতে পারে।
ম্যালেরিয়া প্রকার ভেদঃ জীবাণুর ধরন অনুসারে ম্যালেরিয়া কে ফেলসিপেরাম, ভাইভ্যাক্স,ওভালি ও ম্যালেরি হিসেবে ভাগ করা যায৷ আবার রোগের লক্ষণের ধরন অনুসারে ম্যালেরিয়া কে সাধারণ/জটিলতা বিহীন ম্যালেরিয়া ও মারাত্মক ম্যালেরিয়া হিসাবেও চিহ্নিত করা যায়৷ বাংলাদেশের বেশির ভাগ ম্যালেরিয়া ফেলসিপেরাম ধরনের। ভাইভেক্স ম্যালেরিয়া ও রয়েছে...
 

তথ্য: তথ্য আপা প্রকল্প
  • আপলোডের তারিখ: 09/15/2015 - 16:30
  •  পঠিত: 1,477
  • 0 মতামত

[ পাঠ্য সামগ্রী ] কালাজ্বর

কালাজ্বর কীঃ কালাজ্বর শব্দটি কালা এবং আজর এদুটি শব্দ হিন্দি শব্দ থেকে এসেছে৷ কালা মানে কালো আর আজর মানে ব্যাধি৷ তাই যে রোগে ভুগলে শরীর কালো হয়ে যায় তাকেই কালাজ্বর বলা হয়৷কালাজ্বরের বৈজ্ঞানিক সংজ্ঞা অবশ্য অন্যরকম৷লিসম্যানিয়া ভনোভানি নামক এক ধরনের পরজীবীর সংক্রমণে যে জ্বর হয় এবং যাতে প্লীহা ও যকৃত বেড়ে যায়, শরীরের রক্ত কণিকা গুলো কমে গিয়ে রক্ত স্বল্পতার সৃষ্টি করে এবং শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যায়...
 

তথ্য: তথ্য আপা প্রকল্প
  • আপলোডের তারিখ: 09/16/2015 - 11:40
  •  পঠিত: 1,436
  • 0 মতামত

[ পাঠ্য সামগ্রী ] টাইফয়েড জ্বর

টাইফয়েড রোগটির উপসর্গ হল জ্বর কিন্তু শরীরের যে অংশ আক্রান্ত হয় তা হল ক্ষুদ্রান্ত্র৷ ক্ষুদ্রান্ত্রের প্রদাহের জন্যই টাইফয়েড হয়।
কারণঃ সালমোনেলা টাইফিনামের এক প্রকার জীবাণু দিয়ে এ রোগ হয় জীবাণু যুক্ত খাবার দাবার, মাছি বা অপরিষ্কার হাতের সাহায্যে এ রোগের জীবাণু পরিপাক তন্ত্রে প্রবেশ করে৷ টাইফয়েড রোগের সুপ্তিকাল ১০ থেকে ১৫ দিন...
 

তথ্য: তথ্য আপা প্রকল্প
  • আপলোডের তারিখ: 09/16/2015 - 13:39
  •  পঠিত: 1,908
  • 0 মতামত

[ পাঠ্য সামগ্রী ] ডেঙ্গু জ্বর

ডেঙ্গু ভাইরাস জনিত রোগ৷ এটা এডিস মশা দ্বারা ডেঙ্গু রোগীর থেকে সুস্থ মানুষের দেহে সংক্রমিত হয়৷ এডিস মশা দেখতে গাঢ় নীলাভ কালো রঙের মশার সমস্ত শরীরে আছে সাদাসাদা ডোরাকাটা দাগ৷এডিস মশা সাধারণত দিনের বেলায় কামড়ায়৷বেশিরভাগ ডেঙ্গু হয় বর্ষার সময়৷এই ভাইরাস মানুষের শরীরে প্রবেশের পর ৩ থেকে ১৫ দিনের মধ্যে লক্ষণ গুলো প্রকাশ পায়...

 

তথ্য: তথ্য আপা প্রকল্প
  • আপলোডের তারিখ: 09/16/2015 - 13:56
  •  পঠিত: 2,318
  • 0 মতামত

[ পাঠ্য সামগ্রী ] সোয়াইন ফ্লু (Swine Flu)

সোয়াইন ফ্লু নামটি শুনলেই বোঝা যায় এটা শুকরের একটি অসুখ। আসলে শুকরের ইনফ্লুয়েঞ্জার অপর নামই হচ্ছে সোয়াইন ফ্লু। একে হগ ফ্লু বা পিগ ফ্লু নামেও ডাকা হয়। শুকরের এমন রোগ হলে তা শুকরের মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়ে এবং অনেক শুকর মারা যায়। তাহলে তাতে মানুষের এতো ঘাবড়ানোর কি আছে? আছে, যারা শুকর লালন পালন বা চাষাবাদ করে শুকর থেকে তাদের এ রোগ আসতে পারে, আবার যে সকল মানুষ ঐসব খামারির সংস্পর্শে আসবে তাদেরও এই রোগ হতে পারে। তবে আশ্চর্যজনক হলেও সত্য এই যে ২০০৯ সালে যে সোয়াইন ফ্লু নিয়ে আমরা...

 

তথ্য: তথ্য আপা প্রকল্প
  • আপলোডের তারিখ: 09/16/2015 - 15:01
  •  পঠিত: 1,094
  • 0 মতামত

[ পাঠ্য সামগ্রী ] বার্ড ফ্লু (Bird Flu, Avian Flu)

বার্ড ফ্লু হলো একধরনের ফ্লু বা ইনফ্লুয়েঞ্জা জাতীয় রোগ। ভাইরাস বাহিত এই রোগটি পাখিদের সংক্রমিত করে। ইনফ্লুয়েঞ্জা ‘এ’ নামক এই ভাইরাসটির জন্য একেক সময় বার্ড ফ্লু পাখির মহামারি হিসেবে দেখা দেয়ায় প্রান হারিয়েছে বিলিয়ন বিলিয়ন পাখি। বার্ড ফ্লুকে, বার্ড ইনফ্লুয়েঞ্জা এবং এভিয়ান ফ্লু নামেও ডাকা হয়। পাখিরা খুব দ্রুত একস্থান থেকে অন্য স্থানে চলে যেতে পারে দেখে এই রোগ পুরো বিশ্বময় ছড়িয়ে পড়তে খুব একটা সময় লাগেনা...

 

তথ্য: তথ্য আপা প্রকল্প
  • আপলোডের তারিখ: 09/16/2015 - 15:10
  •  পঠিত: 1,280
  • 0 মতামত

[ পাঠ্য সামগ্রী ] ইনফ্লুয়েঞ্জা (ফ্লু)

নফ্লুয়েঞ্জা ভাইরাস এ অথবা বি মানব দেহে এই রোগ করে থাকে।

লক্ষনঃ কাপুনি দিয়ে জর,সমস্ত শরীর ও হাতে পায়ে ব্যথা,তীব্র মাথা ব্যথা,গলা ব্যথা এবং শুকনো কাশি এই রোগের লক্ষন হিসাবে পরিচিত।

পরীক্ষাঃ তেমন কোনো পরীক্ষার প্রয়োজন হয়না তবে সি,এফ,টি পরীক্ষাটি করে অনেক সময় রোগ নির্ণয় করা হয়।

চিকিৎসাঃ বিশ্রাম নেয়া সেই সাথে জর উপশমের জন্য প্যারাসিটামল জাতীয় ঔষুধ খেলে এই রোগ এমনিতেই ভালো হয়ে যায়, তবে সাথে অন্য ইনফেকশন থাকলে চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী এন্টিবায়োটিক সেবন করতে হয়...

 

তথ্য: তথ্য আপা প্রকল্প
  • আপলোডের তারিখ: 09/16/2015 - 15:19
  •  পঠিত: 889
  • 0 মতামত

পৃষ্ঠাসমূহ