প্রাণিসম্পদ

[ পাঠ্য সামগ্রী ] গবাদী পশু প্রাণির জাত পরিচিতি

জাতঃ ইহা একটি বিশেষ গোষ্ঠি, যাহার সদস্য সদস্যাবৃন্দ একই চারিত্রিক বৈশিষ্টের অধিকারী এবং ঐ চারিত্রিক বৈশিষ্টগুলি বংশ পরম্পরায় সমভাবে বিদ্যমান।
গবাদি পশুর জাতকে সাধারণতঃ ৩টি উপায়ে বিভক্ত করা যায়। যথাঃ
  • উৎপত্তি ও আকার অনুসারে
  • ব্যবহার বা কাজ দ্বারা
  • জাতির মৌলিক্ত বা বিশুদ্ধতার পরিমান দ্বারা...

 

তথ্য: তথ্য আপা প্রকল্প
  • আপলোডের তারিখ: 09/09/2015 - 17:32
  •  পঠিত: 13,998
  • 0 মতামত

[ পাঠ্য সামগ্রী ] গরু মোটাতাজাকরন প্রযুক্তি

ভূমিকাঃ বাংলাদেশে গরুর মাংস খুব জনপ্রিয় এবং চাহিদাও প্রচুর। তাছাড়া মুসলমাদের ধমীয় উৎসব কুরবানীর সময় অনেক গরু জবাই করা হয়। সূতরাং ‘‘গরু মোটাতাজাকরণ’’ পদ্ধতি বাংলাদেশের জন্য খুব গুরুত্বপূর্ন এবং একটি লাভজনক ব্যবসা।
গরু মোটাতাজাকরণ প্রক্রিয়ায় ধারাবহিকভাবে যে সকল বিষয়গুলো সম্পন্ন করতে হব তা নিম্নরুপঃ
  • পশু নির্বাচন
  • কৃমিমুক্তকরন ও টিকা প্রদান
  • পুষ্টি ও খাদ্য ব্যবস্থাপনা
  • বাজারজাতকরন

তথ্য: তথ্য আপা প্রকল্প
  • আপলোডের তারিখ: 09/10/2015 - 10:00
  •  পঠিত: 3,632
  • 0 মতামত

[ পাঠ্য সামগ্রী ] ইউরিয়া মোলাসেস স্ট্র

ভূমিকাঃ আমাদের দেশের গবাদি পশুর প্রধান খাদ্য হল খড়। কিন্তু খড়ের পুষ্টিমান খুবই কম। তাই খড়ের পুষ্টিমান বৃদ্ধির লক্ষ্যে বাংলাদেশ পশুসম্পদ গবেষণা ইনষ্টিটিউই দীর্ঘ গবেষণা ও কৃষক পর্যায়ে যাচাই করে দেশে প্রাপ্ত খড়, ইউরিয়া ও চিটাগুড়ের মিশ্রণে তৈরী করেছে ইউ, এম, এস, গো-খাদ্য প্রযুক্তিটি। এটি ইউ রিয়া, মোলাসেস এবং খড় (স্ট্র) এর একটি মিশ্রিত খাবার যা গরুকে প্রতিদিন শুকনা খড়ের পরিবর্তে চাহিদামস খাওয়ানো যায়...

 

তথ্য: তথ্য আপা প্রকল্প
  • আপলোডের তারিখ: 09/10/2015 - 10:19
  •  পঠিত: 3,179
  • 0 মতামত

[ পাঠ্য সামগ্রী ] সবুজ ঘাস সংরক্ষণ

ভূমিকাঃ বাংলাদেশে বৃষ্টির মৌসুমে কোন কোন এলাকায় প্রচুর পরিমানে ঘাস পাওয়া যায়। যেমনঃ দূর্বা, আরাইল, সেচি, দশ, শষ্য খেতের আগাছা ইত্যাদি। বৃষ্টির মৌসুমে গো-সম্পদের স্বাস্থ্যের যথেষ্ট উন্নতিও হয়। কিন্তু শুষ্ক মৌসুমে ঘাসের অভাবে স্বাস্থ্যের অবনতি ঘটে। তাই এ সময়ে উৎপাদিত অধিক পরিমান ঘাসকে সংরক্ষন করে রাখার জন্য বাংলাদেশ পশুসম্পদ গবেষণা ইনষ্টিটিউট দেশীয়...

 

তথ্য: তথ্য আপা প্রকল্প
  • আপলোডের তারিখ: 09/10/2015 - 10:42
  •  পঠিত: 2,421
  • 0 মতামত

[ পাঠ্য সামগ্রী ] গো-খাদ্য হিসাবে এ্যালজ

এ্যালজি কিঃ এ্যালজি এক ধরনের উদ্ভিদ আকারে এক কোষী থেকে বহুকোষী বিশাল বৃক্ষের মত হতে পারে। তবে আমরা এখানে দুটি বিশেষ প্রজাতির এক কোষী এ্যালজির কথা উল্লেখ করবো যা গো-খাদ্য হিসাবে ব্যবহার করা যাবে। এদের নাম হলো ক্লোরেলা এবং সিনেডসমাস। এরা সূর্যালোক, পানিতে দ্রবীভুত অক্সিজেন, কার্বন ডাই- অক্সাই্ড ও জৈব নাইট্রোজেন আহরণ করে সালোকসংশ্লেন প্রক্রিয়ার বেচে থাকে। এরা...

 

তথ্য: তথ্য আপা প্রকল্প
  • আপলোডের তারিখ: 09/10/2015 - 11:01
  •  পঠিত: 1,262
  • 0 মতামত

[ পাঠ্য সামগ্রী ] গবাদিপশুর কৃমিরোগ

ভূমিকাঃ বাংলাদেশের জলবায়ু পরজীবির বংশবিস্তারের সহায়ক তাই আমাদের দেশে গবাদিপশুতে এই রোগের প্রাদূর্ভাব বেশী। কৃমি গবাদিপশুর পুষ্টি উপাদান শোষণ করে প্রতি বছর ব্যাপক অর্থনৈতিক ক্ষতি সাধন করে। নিয়মিত কৃমিনাশক ব্যবহার করে সহজেই গবাদি পশুকে কৃমি মুক্ত রাখা যায়...

 

 

তথ্য: তথ্য আপা প্রকল্প
  • আপলোডের তারিখ: 09/10/2015 - 11:19
  •  পঠিত: 815
  • 0 মতামত

[ পাঠ্য সামগ্রী ] ষ্টল ফিডিং পদ্ধতিতে ছাগল পালন

বাংলাদেশে ছাগল পালনের ক্ষেত্রে সাধারণত ছাগলকে ছেড়ে বা মাঠে বেঁধে খাওয়ানো হয়। গবেষণার মাধ্যমে উদ্ভাবিত বিজ্ঞানভিত্তিক বাসস্থান, খাদ্য ও স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনা অনুসারে ছাগল পালনের প্যাকেজ প্রযুক্তিকে স্টল ফিডিং পদ্ধতি বলা হয়।
স্টল ফিডিং পদ্ধতির করণীয়ঃ
ছাগল নির্বাচনঃ এ পদ্ধতিতে ছাগল খামার করার উদ্দেশ্যে ৬-১৫ মাস বয়সী স্বাভাবিক ও রোগমুক্ত ব্ল্যাক বেঙ্গল জাতের পাঁঠা/ছাগী সংগ্রহ করতে হবে। পাঁঠার বয়স ৫-৭ মাস...
 

তথ্য: তথ্য আপা প্রকল্প
  • আপলোডের তারিখ: 09/10/2015 - 12:40
  •  পঠিত: 5,809
  • 0 মতামত

[ পাঠ্য সামগ্রী ] ব্ল্যাক বেঙ্গল ছাগল পালন

ভূমিকাঃ এদেশে প্রাপ্ত প্রায় ২০ মিলিয়ন ছাগলের প্রায় ৯৩ ভাগ পালন করে ক্ষুদ্র এবং মাঝারী ধরণের খামারীরা। বাংলাদেশে প্রাপ্ত ব্ল্যাক বেঙ্গল ছাগলের মাংস যেমন সুস্বাদু চামড়া তেমনি আন্তর্জাতিকভাবে উন্নতমানের বলে স্বীকৃত। তাছাড়া ব্ল্যাক বেঙ্গল ছাগলের বাচ্চা উৎপাদন ক্ষমতা অধিক এবং তারা দেশীয় জলবায়ুতে বিশেষভাবে উৎপাদন উপযোগী। এসব গুনাবলী থাকা সত্ত্বেও ব্ল্যাক বেঙ্গল ছাগলের...

 

তথ্য: তথ্য আপা প্রকল্প
  • আপলোডের তারিখ: 09/10/2015 - 13:38
  •  পঠিত: 18,245
  • 0 মতামত

পৃষ্ঠাসমূহ